সাকিব ‘দ্য ফিনিশার’

শেষ ওভারে কলকাতা নাইট রাইডার্সের দরকার ছিল ৭ রান। দায়িত্বটা এসে পড়ে সাকিব আল হাসানের কাঁধে। বোলার প্রান্তের ক্রিজে নাইট অধিপতি ইয়ন মরগান।

আর ডেনিয়েল ক্রিশ্চিয়ানের প্রথম বলেই দারুণ এক শটে চার হাঁকালেন সাকিব। কলকাতার জন্যও কাজটা সহজ করে দেন।

বাকি তিনটি রানের দুটি নেন সাকিব। স্ট্রাইক রোটেট করতে কেবল একরান নিয়েছেন মরগান।

৪র্থ বলে সিঙ্গেল নিয়ে ম্যাচ জেতান বাংলাদেশি অলরাউন্ডার। অর্থাৎ সাকিবের ব্যাট ছুঁয়ে এলো কলকাতার জয়।

বিরাট কোহলির রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু আরও একবার পুড়ল আক্ষেপে। কলকাতার কাছে ৪ উইকেটে হেরে বিদায় নিয়ে শেষ হলো কোহলির আইপিএল অধিনায়কত্বের অধ্যায়। কলকাতা চলে গেল আইপিএলের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে। সেখানে অপেক্ষায় দিল্লি ক্যাপিটালস।

বেশি বল খেলার সুযোগ পাননি সাকিব। ৬ বলে খেলে অপরাজিত ৯ রান করেছেন। কিন্তু সাকিবের এই ৯ রানের ছোট্ট ইনিংসই মহামূল্যবান বাংলাদেশি ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে।

কলকাতার জয় ছাপিয়েও আলোচনা সে কথা। আর বিষয়টি বেশ ভালোই জানা কলকাতা নাইট রাইডার্সের ফেসবুক পেজ এডমিনের।

সাকিবকে মি. ফিনিশার বলে প্রশংসা করেছে তারা।

ম্যাচ জয়ের পরই সাকিবের থাম্বসআপে হাস্যজ্জ্বল ছবি ও তার ব্যাট-বল, প্যাড এবং হেলমেটের ছবি আপলোড করেছে কেকেআরের ফেসবুক পেজ।

ক্যাপশনে লিখেছে, আমাদের ফিনিশার ও তার অস্ত্রগুলো।

পোস্টটি বেশ মনে ধরেছে সাকিব ফ্যানদের। পোস্টের পর এক ঘণ্টা পার হতে না হতেই প্রায় এক লাখ রিয়েক্ট জমা পড়েছে। যার বেশি অংশটাই লাভ রিয়েক্ট।

ছবি দুটির তলায় মন্তব্য জমা পড়েছে হাজার হাজার। প্রায় সব মন্তব্যই সাকিবের ভূয়সী প্রশংসায় করা।  অনেকেই একমত যে, মি. অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের বুদ্ধিদীপ্ত ও সাহসী ব্যাটিংয়ে শেষ ওভারে ম্যাচ জিতেছে কলকাতা।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!