আফগান টিভির মর্নিং শো’র উপস্থাপনায় নারী

আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর দেশটিতে নারীদের কর্মক্ষেত্রে ফেরার আহ্বান জানিয়েছিল তালেবান। এমনকি সংগঠনের পক্ষ থেকে এটাও জানানো হয়েছিল যে, নতুন সরকারেও নারীদের অংশগ্রহণ চায় তারা। পশ্চিমা বিশ্ব তালেবানের শাসন নিয়ে বার বার উদ্বেগ জানিয়েছে। কিন্তু তালেবান আফগান নাগরিকদের নিরাপত্তা এবং স্বাভাবিক জীবনযাত্রার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

তালেবানের নিয়ন্ত্রণের পর পরই দেশটির অন্যতম প্রধান সংবাদ মাধ্যম টোলো নিউজের খবরে নারী সংবাদ পাঠকদের উপস্থিতি দেখা গেছে। এবার টোলো টিভির মর্নিং শো’র উপস্থাপনায় দেখা গেল আরও এক নারীকে। তালেবান ক্ষমতা গ্রহণের পর হয়তো অনেকেই ভেবেছিলেন যে, নারীদের আর সংবাদ উপস্থাপনা বা টেলিভিশনের কোনো অনুষ্ঠানের উপস্থাপনায় দেখা যাবে না। কিন্তু দিন দিন সেই ভুল ভাঙছে।

আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, টোলো টিভি তাদের মর্নিং শো আবারও সম্প্রচার শুরু করেছে এবং সেখানে নারী উপস্থাপিকা অনুষ্ঠান পরিচালনা করেছেন।

টোলো টিভির পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান মোবি গ্রুপের পরিচালক সাদ মোহসেনি বৃহস্পতিবার সামাজিক মাধ্যমে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি মর্নিং শোতে উপস্থাপনা করা নারীর কিছু ছবি টুইটারে পোস্ট করেছেন। তালেবান ক্ষমতা দখল পর থেকেই সামনের দিনগুলোতে কী ঘটতে যাচ্ছে তা নিয়ে জল্পনা চলছিল।

১৯৯৬ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত আফগানিস্তান তালেবানের শাসনে ছিল। এর মধ্যে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আল-কায়েদার নেতাদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়ার অভিযোগে ২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন পশ্চিমা জোট সেখানে যৌথ অভিযান চালায়, যার মাধ্যমে তালেবান শাসনের অবসান ঘটে।

অতীতে তালেবানের শাসনে নারীদের ওপর কঠোর নিয়ম জারি ছিল। সে কারণেই এবার তাদের শাসন ব্যবস্থা কেমন হবে তা নিয়ে আগ্রহের শেষ নেই। তবে শুরু থেকেই তারা বেশ কিছু বিষয়ে মানুষকে আশ্বস্ত করেছে। তারা প্রতিশ্রুতি দিয়েছে যে, হিজাব পরে নারীরা তাদের কর্মক্ষেত্রে ফিরতে পারবেন। এছাড়া আফগান নাগরিকদের জীবন-যাত্রার উন্নয়নে কাজ করার কথাও জোর দিয়েই বলেছে তারা। এর আগে তালেবান টোলো টিভিকে প্রপাগান্ডা নেটওয়ার্ক বলে উল্লেখ করলেও এখন পরিস্থিতি বদলেছে।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!